শুক্রবার,৩রা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ


দশ হাজারের বেশি কোরবানির স্পট নির্ধারণ


সেরাকন্ঠ.কম :
২৩.০৮.২০১৭

কোরবানির পশু জবাই ও বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়াতে এ বছর ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুযায়ী পরিবেশ দূষণরোধ ও জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় সারাদেশে দশ হাজারেরও বেশি কোরবানির স্পট নির্ধারণ করা হয়েছে। যেখানে স্থানীয়রা তাদের কোরবানির পশু জবাই করবেন।

রাস্তাঘাট ও উন্মুক্তস্থানে পশু জবাই নিষিদ্ধ করা হয়েছে। বাড়ির আঙিনা এবং নির্ধারিত স্পট ছাড়া আর কোথাও কোরবানি করা যাবে না। এ উদ্দেশ্যে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে মাইকিং ও লিফলেট বিতরণসহ ব্যাপক প্রচারণা কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। এ ছাড়া প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় এ সম্পর্কে ব্যাপক জনসচেতনতামূলক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

এদিকে ঢাকা শহরে দ্রুততম সময়ের মধ্যে কোরবানির বর্জ্য অপসারণের প্রস্ততি চূড়ান্ত করা হয়েছে। সিটি করপোরেশনের নির্ধারিত জবাইখানায় কোরবানি করা হলে পরবর্তী ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে বর্জ্য অপসারণ সম্ভব হবে। নির্ধারিত স্থানের বাইরে কোরবানির পশু জবাই না করার জন্য এবং যেখানে সেখানে কোরবানির বর্জ্য না ফেলার জন্য ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে নগরবাসীর প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বুধবার আসন্ন কোরবানির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিষয়ক এক সভায় এসব বিষয়ে উদ্যোগ গ্রহণের কথা জানানো হয়। তথ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

তথ্যসচিব মরতুজা আহমদের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান তথ্য অফিসার কামরুন নাহার, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মহাপরিচালক মো. আবদুল হালিম, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেজবাহুল ইসলাম, এটিসিও’র পরিচালক ফারজানা মুন্নী, তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধি এবং ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় উভয় সিটি করপোরেশনের প্রতিনিধিরা জানান, দ্রুততম সময়ের মধ্যে কোরবানির বর্জ্য অপসারণে তারা ব্যাপক প্রস্ততি নেওয়া হয়েছে। বিগত দুই বছরে ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে প্রায় সব বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে। এ বছরও এর ব্যতিক্রম হবে না।

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রতিটি ওয়ার্ডে ইতিমধ্যে ৫টি করে জবাইখানা নির্ধারণ করা হয়েছে। দক্ষিণের প্রতিনিধি জানান, দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকায় মোট ৬২৫টি জবাইখানা নির্ধারণ করা হয়েছে।

তথ্যসচিব মরতুজা আহমদ নির্ধারিত স্থানের বাইরে কোরবানির পশু জবাই না করার জন্য নগরবাসীর মধ্যে ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টির জন্য মাইকিং, ইমামদের মাধ্যমে প্রচার, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ব্যাপক প্রচারের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান।